৫টি ‘ক্যান্সার ফাইটার’ খাবার

0

হলে পরে ক্যানসার, নেই কোনও আনসার। চিকিত্সা বিজ্ঞান প্রভুত উন্নতি করলেও, এখনও পর্যন্ত কর্কট রোগকে পুরোপুরি বাগে আনতে পারেনি। তাই ক্যান্সার শুনলেই আমাদের মাথায় বাজ পড়ে। অথচ কয়েকটা খুব স্বাভাবিক খাবার নিয়মিত খেলে সহজেই লড়াই করা যেতে পারে এই মারণ ব্যাধির সঙ্গে। আসুন এবার জেনে নেওয়া যাক সেই খাদ্যের নাম-ধাম:

আঙুর-

এই ফল ক্যান্সারের জন্য খুবই উপকারি। Resveratrol নামক প্রয়োজনীয় অ্যান্টিঅক্সাইডের উত্স হল আঙুর। শরীরে এই রোগের জন্ম থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রতিটা ধাপেই রোগকে বাধা দেয় আঙুর বা বলা ভাল Resveratrol.

কিউই-

 

কিউই-তে রয়েছে প্রচুর পরিমান ভিটামিন-সি এবং ক্যান্সারের সঙ্গে লড়তে সক্ষম অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এছাড়াও এই ফলে থাকা ফোলাটেস, ক্যারোটিনয়েডস এবং ভিটামিন-সি শরীরে ক্যান্সারের প্রভাবকে কমিয়ে দেয় এবং শরীরকে রক্ষা করে।

ব্রকোলি-

প্রচুর পরিমানে অ্যান্টিঅক্সাইড, ফাইবার, ফ্ল্যাভোনয়েডস ইত্যাদি দ্বারা পরিপূর্ণ থাকে ব্রকোলি। ক্যান্সার আক্রান্ত কোষ যে পরিমান ক্ষতিসাধন করে থাকে তার কবল থেকে মুক্ত করতে ব্রকোলির গুরুত্ব অনস্বীকার্য। এছাড়াও আক্রান্ত কোষের বৃদ্ধিকে কমিয়ে এই দেয় এই ‘গ্রিন ভেজিটেবিল’টি।

রসুন-

রসুনে প্রচুর পরিমাণে সালফার থাকে। সেইসঙ্গে থাকে আর্জিনাইন, অলিগোস্যাচারাইডস, ফ্ল্যাভোনয়েডস ও সেলেনিয়াম। যা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই উপযোগী। গবেষণা রিপোর্ট বলছে, যদি কেউ প্রতিদিন রসুন খান, তাহলে তাঁর পাকস্থলী, কোলন, অন্ত্র, অগ্ন্যাশয় ও স্তন ক্যানসারের ঝুঁকি বহুলাংশে কমে যায়।

বেরি-

ব্যাকবেরি, ব্লুবেরি এবং স্ট্রবেরি খাওয়া শুরু করুন নিয়মিত। কারণ এগুলো pterostilbene অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ, যা ক্যান্সার প্রতিরোধী হিসাবে সুপরিচিত।

LEAVE A REPLY

one × 3 =