সুস্থ থাক ছোট্ট শিশু শীতেও

0

স্কাই নিউজ প্রতিবেদক: শীত-মৌসুমী অসুস্থতা থেকে রক্ষা পেতে শিশুর ত্বকের জন্য চাই বাড়তি যত্ন। এই সময় ত্বক শুষ্ক থাকে। ফলে ডায়াপার র্যাীশ, শুষ্ক গাল, শরীর ও মাথায় ফাঁটা-চামড়ার সৃষ্টি হয়। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে শিশুর জন্য বাড়তি যত্ন নিন।

ব্যাঙ্গালরের শিশু বিশেষজ্ঞ রঞ্জন পেজওয়ার শীতকালে শিশুর ত্বকের সমস্যা হওয়ার সাধারণ কিছু কারণ চিহ্নিত করেন।

ডায়াপার র্যা শ:
ভুল আকার ও মাপের ডায়াপার ব্যবহারে ঘর্ষণের কারণে সাধারণত ডায়াপার র্যা শ সৃষ্টি হতে পারে।

রুক্ষ ও শুষ্ক গাল:
শুষ্কতার কারণে ত্বকে কাপড় বা পোশাকের ঘষা লেগে বা নাকের পানি কাপড়ের সাহায্যে মোছার কারণে জ্বালাপোড়া ভাবের সৃষ্টি হয়।

একজিমা: শিশুর ত্বকে আর্দ্রতার অভাবে একজিমা দেখা দেয়। শীতকালে প্রতিদিনকার ত্বকের শুষ্কতা থেকে এই সমস্যা দেখা দেয়।

‘দ্যা হিমালয়া ড্রাগ কম্পানি’র গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের আয়ুর্বেদী বিশেষজ্ঞ প্রতিভা জানান, “শিশুর ত্বক প্রাকৃতিকভাবেই আর্দ্র ও কোমল। আর শিশুর ত্বকের যত্ন ও কোমলভাব ধরে রাখার জন্য প্রাকৃতিক পণ্য ব্যবহার করাই শ্রেয়।”

শীতে শিশুর ত্বকের যত্ন নেওয়ার উপায় প্রসঙ্গে পরামর্শ দেন তিনি।

* শিশুর ত্বকের মসৃণতা রক্ষা করতে গোসলের আগে তেল মালিশ করুন।

* শিশুর ত্বকের কোমলতা ধরে রাখতে তেলে শীতকালীন চেরি ডুবিয়ে রেখে তা দিয়ে দিনে দুতিনবার তেল মালিশ করুন।

* শীতকালে, প্রতিদিন শিশুর মাথা ধোয়াসহ গোছল করানোর দরকার নেই। আর কুসুম গরম পানি দিয়ে মাথা না ভিজিয়ে প্রতিদিন গোসল করান। গরম পানি শিশুর ত্বকের প্রতিরোধরক স্তরের ক্ষতি করতে পারে।

* শিশুর ত্বকের নরমভাব উন্নত করতে জলপাই বা কাঠবাদামের তেল সমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।

* শিশুর নিতম্বে র্যাবশ ও জ্বালাপোড়াভাব থেকে মুক্ত রাখতে কাঠবাদামের তেল ও যশোদা-ছাই সমৃদ্ধ ক্রিম ব্যবহার করুন।

* শিশুর ত্বকের যত্নে মৃদু ও সাধারণ শ্যাম্পু বা সাবান ব্যবহার করুন যা ভেষজ সমৃদ্ধ ও অ্যালকোহল মুক্ত।

* ত্বকের প্রাকৃতিক তেল বজায় রাখার জন্য মটর, মেথি ও সবুজ-বীজের উপাদান সমৃদ্ধ উপকরণ শিশুর গোসলের সময় ব্যবহার করুন।

LEAVE A REPLY

nine − four =