রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা

0

স্কাই নিউজ প্রতিবেদক: মিয়ানমারের রাখাইনে যে গোষ্ঠীর হামলার জবাবে রোহিঙ্গাদের ওপর সেনাবাহিনী নিধনযজ্ঞ চালিয়েছে, সেই আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা) ফের লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।
সেনাবাহিনীর ওই অভিযান শুরুর পর অস্ত্রবিরতির ঘোষণা দিয়েছিল আরসা। এরপর প্রায় ৪ মাস তাদের আর কোনো সাড়া-শব্দ মেলেনি। গত শুক্রবার রাখাইনে সেনাবাহিনীর একটি ট্রাকে হামলায় ৩ জন আহত হওয়ার পর আবার তারা আলোচনায় এসেছে।
হামলার জন্য মিয়ানমারের সেনা কর্মকর্তারা আরসাকেই দায়ী করেছিলেন। এই সশস্ত্র গোষ্ঠীর নেতা আতা উল্লাহ রোববার এক টুইটে হামলার দায় স্বীকার করেছেন বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।


রাখাইনে সন্ত্রাস নির্মূলের নামে সেনাবাহিনীর ওই অভিযানে এক মাসেই ৬ হাজার ৭০০ মানুষ নিহত হয় হয় বলে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মেদসঁ সঁ ফ্রঁতিয়ের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। শত শত রোহিঙ্গা গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়ার প্রমাণ উঠে এসেছে স্যাটেলাইট চিত্রে।
এই হত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট ও জ্বালাও-পোড়াওয়ের মুখে রাখাইনের রোহিঙ্গাদের অর্ধেকের বেশিই বাংলাদেশে চলে এসেছে। তাদের আবার মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে দেশটির সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের একটি সম্মতিপত্র সই এবং সে অনুযায়ী যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠিত হয়েছে।

এই প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গারা নিরাপত্তার সঙ্গে স্বভূমে ফিরতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করছেন বাংলাদেশের কর্মকর্তারা। এমন সময়ে আবার মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ওপর হামলায় আরসার দায় স্বীকারের খবর এলো।

LEAVE A REPLY

14 + 3 =