ফ্রান্সে আল্পসের পাহাড়চূড়ায় বসেছিল দ্য গ্রেট ওডিসির আসর

0

রেস। লাইফ মানেই তো তাই। ছুটে চলা। লক্ষ্যের পিছনে। ফ্রান্সে আল্পসের পাহাড়চূড়ায় বসেছিল এমনই এক অভিনব রেসের আসর। বরফে দুদ্দাড় ছুটল স্লেজগাড়ি। ড্রাইভারের সিটে, সারমেয় GANG। জোর টক্কর, কে কাকে হারাবে! জমজমাট রেস। বীরু সহস্রবুদ্ধি, ওরফে ভাইরাসের এই মন্ত্র  কিন্তু প্রত্যেকের জীবনেই খাটে। শুধু মনুষ্যকুলে নয়, চারপেয়েদের মধ্যেও।এমনিতে তো বরফ আর স্লেজগাড়ি বললেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে, সান্টাবুড়োর ছবি।গাড়ি টেনে নিয়ে যায় রেইনডিয়ারের দল। তেমনটাই সবার জানা। তবে আল্পসের বরফে ঢাকা পাহাড়চূড়ায়, স্লেজ গাড়ির ড্রাইভার কিন্তু এই সারমেয় গ্যাং। দ্য গ্রেট ওডিসি। প্রতিযোগীতার নাম। এনারাই তার যাবতীয় অ্যাটরাকশন। ১১ দিনের ট্রেকিংয়ে যেতে হয় ৬৭০ কিলোমিটার পথ।সমুদ্রতল থেকে প্রায় ২০ হাজার মিটার উচ্চতায় এই স্পেশাল রেসের আয়োজন।রেসে অংশ নেয় কম করে ৫০০টি কুকুর।

পাহাড়ের দুর্গম পথ। বরফে চোখ ধাঁধিয়ে যাওয়ার জোগাড়। একই মাঝে ছুটে চলা। একে অন্যকে টেক্কা দেওয়ার লড়াই। তারই মাঝে একটু-আধটু মস্তি। শুধুই কি দিনে, রাতেও চলে রেস। একেক ধাপ। নতুন করে যুদ্ধ। ক্লান্তিহীন। ফাইনাল স্টেজে পৌছে সেই লড়াই মিলেমিশে জমজমাট। সব শেষেও অবশ্য সৈনিকদের মধ্যে যেন, ‘দেখ লেঙ্গে’ অ্যাটিটিউড। কেউ কাউকে ছাড়ার পাত্র নয়। তবে রেস মানে তো শুধু জেতা-হারা নয়। অ্যাডভেঞ্চার। তারই মজা চুটিয়ে নিলেন প্রতিযোগীরা। বেস্ট ফ্রেন্ডদের সঙ্গী করে।

LEAVE A REPLY

1 × five =