ফল বা সবজির ‘জুস’ ফিট রাখে কেন?

0

আনারসের জুস: তাজা আনারসের জুস শরীরে ‘এনজাইম’ সরবরাহ করে, সহায়তা করে হজমেও৷ ছোট্ট একটি টিপস: লাউ-চিংড়ি বাঙালির একটি পরিচিত রান্না, তবে এই রান্নায় মসলার পরিমাণ কমিয়ে একটু আনারসের জুস দিয়ে দিন৷ দেখবেন খেতে দারুণ সুস্বাদু হবে আর মিষ্টি সুগন্ধেও ভরে যাবে৷ তবে লাউয়ের খোসা ফেলে না দিয়ে, খোসাসহ স্লাইস করে কেটে নিলে আরো ভালো হয়৷

শসার রস বা জুস: শসার রসে রয়েছে পটাশিয়াম যা হৃদপিণ্ড এবং নার্ভের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷ আসলে শীতকালে যে কোনোই স্যুপ খুব উপাদেয়৷ আর সেটা যদি হয় একটু চর্বিযুক্ত পাঙ্গাস বা স্যামন মাছের স্যুপ, তাহলে তো কথাই নেই৷ স্যুপ হয়ে যাবার পাঁচ মিনিট আগে এককাপ তাজা শসার রস ঢেলে দিন৷ দেখবেন শরীরে কেমন একটা তরতাজা ভাব এনে দেবে৷

আঙুরের রস: আঙুরের রস বা জুসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা বিপাকক্রিয়া ঠিক রাখে৷ সৌন্দর্য ও লাবণ্য ধরে রাখতে আঙুরের রসের জুড়ি নেই৷ তাছাড়া পোলাউ বা চালের জর্দা জাতীয় খাবারে সামান্য আঙুরের রস এনে দেয় রসালো ভাব ও স্বাদ৷ কিছুটা কিশমিশের ‘টেস্ট’৷ একবার করে দেখা যেতে পারে বৈকি!

কমলার জুস: কমলার রসে যে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ রয়েছে, তা বোধ আজ আর কাউকে নতুন করে জানানোর প্রয়োজন নেই৷ কমলার জুস বিভিন্ন রান্নায় স্বাদ তো আনেই, কমলার টুকরো খাবারকেও করে আরো লোভনীয়৷ উনুন থেকে নামানোর কয়েক মিনিট আগে খোসাসহ ডালের চচ্চড়িতে কমলার সামান্য রস আর কয়েক টুকরো কমলা কেটে দিন, খেতে কিন্তু দারুণ! এছাড়া আমাদের দেশে কমলা লেবুর রস দিয়ে মাছ রান্নার চলও রয়েছে৷ কমলা ইলিশ করে দেখুন, কেমন মজা!

ঘুমের ওষুধ চেরি ফলের রস: যাঁদের ঘুমের সমস্যা, তাঁরা রাতে ঘুমানোর আগে এক গ্লাস চেরিফলের জুস খেলে ভালো ঘুম হবে৷ লুইসিয়ানা স্টেট ইউনিভার্সিটির গবেষকরা এই তথ্যটি দিয়েছেন৷ এতে থাকা যথেষ্ট মিনারেল এবং ভিটামিন ঘুমোতে সাহায্য করে৷ তাছাড়া চেরি ফল দিয়ে কিন্তু খুবই মজার আচার তৈরি করা যায়, যা খেতে হয় প্রায় বরইয়ের আচারের মতো৷ করে দেখুনই না একবার!


হৃদরোগ দূরে রাখতে বেদানার রস: বেদানায় রয়েছে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, প্রতিদিন ছোট এক গ্লাস বেদানার রস পান করলে হৃদরোগ থেকে দূরে থাকা যেতে পারে৷ বলা বাহুল্য, জার্মনিতে কিছু দিন আগে পর্যন্তও বেদানা দেখা যেত না৷ তবে আজকাল প্রায় প্রতিটি ফলের দোকানেই বেদানা পাওয়া যায়৷

বিভিন্ন ফল ও সবজির জুস: তাজা ফল বা সবজির জুসে থাকে প্রচুর ভিটামিন এবং মিনারেল, যা শরীরের নানা প্রয়োজন মিটিয়ে শরীরকে ‘ফিট’ রাখে৷ তাই কয়েক রকমের ফল একসাথে মিশিয়ে এক গ্লাস জুস তৈরি করে পান করুন প্রতিদিন৷ বিশেষ করে ঋতু পরিবর্তনের সময় অসুখ-বিসুখকে দূরে রাখতে তাজা ফলের রস খুবই উপকারে আসে৷

LEAVE A REPLY

twelve + one =