জেদ্দা টাওয়ার হবে ১ কিলোমিটার উঁচু

0

স্কাই নিউজ প্রতিবেদক: একুশ শতকের বিস্ময় হিসেবে আবির্ভূত হয়ে বিশ্ববাসীকে চমকে দিয়েছিল সবচেয়ে উঁচু ভবন দুবাইয়ের ‘বুর্জ খলিফা’।

রকেটের মতো দেখতে এই ভবনটির উচ্চতা ছিল ৮২৮ মিটার (দুই হাজার ৭১৭ ফুট)। কিন্তু বুর্জ খলিফার সেই দম্ভকে গুঁড়িয়ে দিতে সৌদি আরব তৈরি করছে এক কিলোমিটার (প্রায় ৩৩০০ ফুট) উচ্চতার ভবন ‘জেদ্দা টাওয়ার’। ১৭০ তলা বিশিষ্ট ভবনটির প্রাথমিক নির্মাণ ব্যয় ৪.৬ বিলিয়ন সৌদি রিয়েল (১.২ বিলিয়ন ডলার) ধরা হলেও শেষ পর্যন্ত তা আরো অনেক বাড়বে। ২০২০ সাল নাগাদ পাহাড় আর মেঘের জলরাশির মধ্য দিয়ে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর কথা রয়েছে জেদ্দা টাওয়ারের। নির্মাণ কাজ শেষ হলে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু টাওয়ারের মর্যাদা লাভ করবে জেদ্দা টাওয়ার।

লোহিত সাগরের পাশেই মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে যাওয়া জেদ্দা টাওয়ারটি তৈরি করতে ৮০ হাজার টন ইস্পাতের প্রয়োজন হবে। ভবনটির নকশা করেছেন বুর্জ আল খলিফার নকশাবিদ মার্কিন স্থপতি আদ্রিয়ান স্মিথ। কিংডম হোল্ডিং কোম্পানির চেয়ারম্যান যুবরাজ আল ওয়ালিদ বিন তালাত ও জেদ্দা ইকোনোমিক কোম্পানি যৌথভাবে এই টাওয়ার নির্মাণ করছেন। জেদ্দা টাওয়ারের প্রধান ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সৌদি বিন লাদেন গ্রুপ। ৫৯টি লিফট, ১২টি দ্রুত গতির এসকেলেটর থাকবে টাওয়ারটিতে। তার মধ্যে ৫টি এসকেলেটর হবে ডাবল ডেকার। সিএনএনের একটি দল গত বছরের শেষ নাগাদ জেদ্দা টাওয়ারের নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করতে গিয়ে দেখেন ইতোমধ্যে ২৫২ মিটার মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে টাওয়ারটি।

জেদ্দা ইকোনমিক সিটির প্রাণকেন্দ্র হবে এই জেদ্দা টাওয়ার। একইসঙ্গে বাণিজ্যিক এবং আবাসিক সুবিধা থাকবে ভবনটিতে। পুরো ভবনে থাকবে ৫ কোটি সত্তর লাখ বর্গফুট জায়গা (৫৩ লাখ বর্গমিটার)। ভবনটিতে থাকবে হোটেল, অ্যাপার্টমেন্ট ও বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের অফিস। পর্যটন আকর্ষণ করতেও জেদ্দা টাওয়ার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

মেগা প্রকল্পের এই কাজটি করতে গিয়ে সৌদি প্রিন্স আল ওয়ালিদ বিন তালাত, জেদ্দা টাওয়ারের নির্মাণকারী কোম্পানি বিন লাদেন গ্রুপের চেয়ারম্যান বকর বিন লাদেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির ইঙ্গিতও উঠেছে। তবে টাওয়ার নির্মাণে বড় কোনো প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারেনি এই অভিযোগ।

জেদ্দা ইকোনমিক কোম্পানির প্রধান নির্বাহী মউনিব হাম্মাউদ বলেন, টাওয়ারের কাজ শেষ হলে বিশ্ববাসীর জন্য এটি হবে অন্যতম এক মাইলফলক।
সূত্র: সিএনএন

LEAVE A REPLY

2 × four =