… এক তৃতীয়াংশ মানুষের শ্রবণশক্তি কমে যাবে!

0

স্কাই নিউজ প্রতিবেদক: পুরো ঢাকা শহরই এখন শব্দ দূষণের শিকার৷  শহরের প্রায় সব এলাকাতেই শব্দ গ্রহণযোগ্য মাত্রার চেয়ে দুই থেকে তিনগুণ বেশি৷ এ অবস্থা চলতে থাকলে ২০২১ সালের মধ্যে ঢাকার জনসংখ্যার এক তৃতীয়াংশ কোনো-না-কোনো ধরনের বধিরতায় আক্রান্ত হবেন৷

শব্দের মাত্রার একককে বলা হয় ‘ডেসিবেল’৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, আবাসিক এলাকায় শব্দের মাত্রা দিনের বেলা ৫৫ ডেসিবেল, রাতে ৪৫ ডেসিবেল হওয়া উচিত; বাণিজ্যিক এলাকায় দিনে ৬৫ ডেসিবেল, রাতে ৫৫ ডেসিবেল; শিল্পাঞ্চলে দিনে ৭৫ ডেসিবেল, রাতে ৬৫ ডেসিবেলের মধ্যে শব্দমাত্রা থাকা উচিত৷ আর হাসপাতালে সাইলেন্স জোন বা নীরব এলাকায় দিনে ৫০, রাতে ৪০ ডেসিবেল শব্দ মাত্রা থাকা উচিত৷

বেসরকারি সংস্থা ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট ঢাকা শহরের ১০টি স্থানের শব্দ পরিমাপ করে দেখেছে, ঢাকায় নির্ধারিত মানমাত্রার চেয়ে গড়ে প্রায় দেড় গুণ শব্দ সৃষ্টি হয়৷

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নাক, কান ও গলা বিভাগের অধ্যাপক ডা. মনিলাল আইচ লিটু বলেন,‘‘এক গবেষণায় দেখা গেছে, এইভাবে শব্দদূষণ অব্যাহত থাকলে আগামী ৫ বছরের মধ্যে ঢাকা শহরের মোট জনসংখ্যার ৩ ভাগের ১ ভাগ কানে কম শুনবে৷ একটি অংশ পুরোপুরি বধির হয়ে যাবে৷”

তিনি বলেন, ‘‘ঢাকার শাহবাগ, মহাখালী বা ফার্মগেট এলাকার শব্দের মাত্রা ১২০ ডেসিবেল পর্যন্ত হয়ে থাকে৷ কিন্তু ওইসব এলাকায় ৬০ ডেসিবেলের বেশি শব্দের মাত্রা গ্রহণযোগ্য নয়৷ পুরো ঢাকা শহরে এমন কোনো জায়গা পাওয়া যাবে না, যেখানে শব্দের মাত্রা স্বাভাবিক আছে৷”

LEAVE A REPLY

6 − 1 =