ইনফার্টিলিটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা যা বলছেন…

0

স্কাইনিউজ প্রতিবেদক: আপনার বয়স তিরিশের কোঠায়? কাজের ফাঁকে কফি মগে ঠোঁট ডুবিয়ে এনার্জি ফিরে পান? সারাদিন ল্যাপটপে মুখ গুঁজে বসে থাকেন? গরমের অজুহাতে, প্রেমিকার পাশে বসে কিংবা যখন-তখন ঠান্ডা পানীয়ে চুমুক দেওয়া অভ্যাস? সাবধান! আপনি বা আপনার মতো জীবনযাপনে অভ্যস্ত ব্যক্তিরা পুরুষ বন্ধ্যাত্বের শিকার হতে পারেন। এতদিন মহিলাদেরই ৩০ বছর বয়সের পরে এবং মদ, সিগারেটে আসক্তি থাকলে গর্ভধারণ করতে সমস্যা হত। কিন্তু এখন পুরুষরাও একই সমস্যায় ভুগছেন।

কলেজ পড়ুয়া থেকে সরকারি-বেসরকারি অফিসের চাকুরে, প্রায় সবাই এখন কোলা-কফি-ল্যাপটপে মজে। এই ৩ সঙ্গীই কিন্তু ভবিষ্যতে বাবা হওয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

কীরকম?

অতিরিক্ত ক্যাফিন সেবন, ল্যাপটপের ব্যবহার, মদ্যপান, ধূমপান, ঠান্ডা পানীয়ে আসক্তি পুরুষের শুক্রাণুর সংখ্যা কমাচ্ছে। একইসঙ্গে শুক্রাণুর গুণগত মানও খারাপ করছে। এমনই দাবি করেছে অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেস (এইমস)-এর একটি গবেষণা রিপোর্ট। তাতে বলা হয়েছে, তিন দশক আগে প্রাপ্তবয়স্ক ভারতীয় পুরুষের বীর্যে প্রতি মিলিলিটারে ৬ কোটি শুক্রাণু পাওয়া যেত। কিন্তু বেশ কয়েক বছর ধরে তরুণদের মধ্যে সমীক্ষা চালিয়ে দেখা যায় প্রতি মিলিলিটার বীর্যে শুক্রাণুর পরিমাণ ২ কোটি হয়েছে।

একইসঙ্গে বয়স বেড়ে যাওয়াও পুরুষ বন্ধ্যাত্বের অন্যতম কারণ। এইমসের রিপোর্টে বলা হয়েছে, তিরিশ পেরনোর পরেই পুরুষের শুক্রাণুর সংখ্যা কমছে ও তার মান খারাপ হচ্ছে। এর ফলে দাম্পত্য জীবন স্বাভাবিক থাকলেও পুরুষসঙ্গীর শুক্রাণু সমস্যার জন্য অনেক সময়ই স্ত্রী সন্তানধারণ করতে পারছেন না। সেই কারণেই আইভিএফ পদ্ধতি বা স্পার্ম ডোনারের চাহিদা বাড়ছে। গবেষণায় দাবি, ভারতে বন্ধ্যাত্বের কারণে দু’কোটিরও বেশি দম্পতি সন্তানসুখ থেকে বঞ্চিত। এর মধ্যে ৩০-৪০ শতাংশ ক্ষেত্রে পুরুষসঙ্গীর বন্ধ্যাত্বের কারণে স্ত্রীরা সন্তানধারণ করতে পারছেন না। কারণ হিসাবে ল্যাপটপ, কোলা, কফি, সিগারেট, মদ্যপানের নেশাকেই দায়ী করছেন ইনফার্টিলিটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

LEAVE A REPLY

fourteen − seven =