আউটসোর্সিংয়ে তিনি একজন …

0

নিজস্ব প্রতিবেদক: রণজিৎ কুমার রায়। জন্মেছেন খুলনায়। ১৯৪৯ সালে। এস.এস.সি পাশ করেন ৬৬ সালে। ইন্টারমিডিয়েট পাশের পর চলে আসেন ঢাকায়। ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। শুরু করেন গণিত বিষয়ে পড়াশোনা।
এরইমধ্যে দেশে শুরু হয়, অসহযোগ আন্দোলন। আসে ১৯৭১, মুক্তিযুদ্ধ। দেশ স্বাধীনের পর ১৯৭৩ সালে শুরু করেন চাকরি জীবন। রূপালি ব্যাংকে। সেই থেকে ২০০৬ পর্যন্ত ছিলেন। এখন অবসরে।

এর আগে, ১৯৮৬ সালে আবদ্ধ হন হন পরিণয়ে। ২ সন্তানের বাবা রণজিৎ কুমার রায়ের ২ ছেলে। বড় ছেলে এমবিএ করেছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। ছোট ছেলে ডাক্তার।
অবসর তার ভাল লাগে না। ঝোঁক, নিজেকে ব্যস্ত রাখা। তাই ছুটে এসেছেন বিআইডিডিতে। আউটসোর্সিং শিখবেন বলে।

বিজ্ঞানের প্রতি প্রবল আগ্রহ তাঁর। আবার অদম্য আকর্ষণ প্রযুক্তিতে। যে কারণে ভর্তি হয়েছেন- গ্রাফিক্স ডিজাইনে।

আর ২ বছর পরই স্পর্শ করবেন ৭০-এর ঘর। এই বয়সেও তিনি কঠিনকে সহজ ভেবে, করতে চান `আউটসোর্সিং’।

ক্লাসের এক ফাঁকে কথা বললেন। জানালেন- আমি নিশ্চিতভাবেই গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমে আয় করবো। করতে চাই ক্রিয়েটিভ কিছু।

তরুণদের মধ্যে আউটসোর্সিংকে কীভাবে আরও জনপ্রিয় করা যায়- এ প্রসঙ্গে বললেন- তরুণদের মধ্যে প্রচন্ড ধৈর্যের অভাব। আমি মনে করি- সততা, নিষ্ঠা এবং ধৈর্য থাকলে এর মাধ্যমে যথেষ্ট অর্থ উপার্জন সম্ভব।

সবশেষে বললেন- আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, এইজ ডাজ নট ম্যাটার। গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমেই আমি অবশ্যই একটা পজিশনে যাবো।

রণজিৎ কুমার রায়ের প্রতি থাকলো আমাদের আন্তরিক শুভকামনা। তিনি যেন বিআইডিডিতে অনলাইন আউটসোর্সিং শিখে, বিশেষ করে, গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমে তিনি পরিচিতি পাবেন বিশ্বময়- এই শুভকামনা থাকলো।

LEAVE A REPLY

nine + two =